কোচবিহারের এস এফ আই নেতা-কর্মীদের উপর পুলিশের নির্মম লাঠিচার্জ

কোচবিহারের কাছারি মোড়ে অবাধ ও সুষ্ঠু ছাত্রসংসদ নির্বাচনের দাবিতে এস এফ আই এর পথ অবরোধে নির্বিচারে লাঠিচার্জ করলো পুলিশ। গুরুতর আহত হয়েছেন ৫ জন এস এফ আই নেতাজেলার ১২টি কলেজে মনোনয়ন তোলা এবং জমা দেওয়ার সময় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের আক্রমণের প্রতিবাদে, অনলাইন মনোনয়নপত্র তোলা এবং জমা করার দাবিতে কোচবিহারের কাছারিমোড়ে পথ অবরোধ করে এস এফ আই কোচবিহার জেলা কমিটি। পুলিশ সেই অবরোধ তুলে দেওয়ায় জেলাশাসকের দফতরে স্মারকলিপি জমা করতে যান এস এফ আই নেতা-কর্মীরা। জেলাশাসক দেখা করেননি। এর পরেই বিনা প্ররোচনায় এস এফ আই এর জমায়েতের উপর লাঠিচার্জ করে পুলিশ। পুলিশের লাঠিচার্জে গুরুতর আহত হয়েছেন জেলা সম্পাদক কমরেড শুভ্রালোক দাস, জেলা সভাপতি  কমরেড আকিক হাসান, কমরেড শম্ভু চৌধুরী, কমরেড চঞ্চলিকা ভট্টাচার্য ও কমরেড স্বরূপা সরকারতাঁদেরকেই গ্রেফতারও করা হয়েছে। এছাড়াও পুলিশের লাঠিচার্জে গুরুতর আহত হয়েছেন আরো অনেকে। গ্রেফতার হওয়া ঐ ৫ জন কমরেডকে প্রিজন ভ্যানে তোলার সময় তাঁদের লাঠি দিয়ে গুঁতোয় পুলিশ। গ্রেফতার হওয়া কমরেডদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

২০১১ সালের পর থেকেই ছাত্রসংসদ নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন করতে গিয়ে আক্রান্ত, রক্তাক্ত হয়েছেন এস এফ আই নেতা-কর্মীরা। ছাত্রসংসদ নির্বাচনের দাবিতে আইন অমান্য করতে গিয়ে শহিদ হয়েছেন এস এফ আই পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সদস্য কমরেড সুদীপ্ত গুপ্ত। ছাত্রছাত্রীদের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়ে ক্যাম্পাসগুলিকে সমাজবিরোধীদের আখড়ায় পরিনত করতে চায় এই রাজ্যের সরকার।

ভারতের ছাত্র ফেডারেশন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে। কোচবিহারের এস এফ আই নেতা-কর্মীদের উপর পুলিশের নির্মম লাঠিচার্জ এবং গ্রেফতারির প্রতিবাদে আগামীকাল সারা রাজ্যব্যপী প্রতিবাদ-বিক্ষোভ কর্মসূচীর আহ্বান জানাচ্ছে ভারতের ছাত্র ফেডারেশন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটি।

ধন্যবাদান্তে,

দেবজ্যোতি দাস সম্পাদক

মধুজা সেন রায় সভাপতি

০৪/০১/২০১৭